পর্দা লঙ্ঘন করে চাকরির উপার্যিত টাকা ব্যয় করা বৈধ কিনা?

আপনি আরও পছন্দ করতে পারেন...

3 Responses

  1. Amanat says:

    কোনো মাযহাব না মেনে যদি সাধারণ মানুষ কুরআন ও হাদীস দেখে আমল করে তাহলে সমস্যা কোথায়? দয়াকরে বিস্তারিত জানালে উপকৃত হব।

    • Admin says:

      সমস্যা হল সাধারন মানুষের এ যোগ্যতা নেই যে কুরআন হাদীসের যে অনুবাদ বা ব্যখ্যা তারা বাংলায় পড়ছে বা জানছে তা সঠিক কিনা তা জানার যোগ্যতা তাদের নেই। আরবী জানে এমন অনেক সাহাবীই অন্য প্রাজ্ঞ সাহাবীদের অনুসরণ করত। কেননা কুরআন ও হাদীস দেখে সরাসরী আমল করার যোগ্যতা তাদের পুরোপুরি ছিল না। অথচ তারা ছিলেন নবী যুগের মানুষ। এখন আপনিই বলুন কোন ব্যক্তি বাংলা ছাড়া অন্য কোন ভাষা জানে না এখন তার পক্ষে কিভাবে সম্ভব হবে কুরআন ও হাদীস দেখে সরাসরী আমল করা। এটা তো এমন হয়ে গেল, একজন গাড়িই চালাতে জানে না সে প্রশ্ন করছে আমাকে কেন বিমান চালাতে দেয়া হবে না?

  2. Amanat says:

    জাযাকাল্লাহু খয়রান। হুজুর আমার একটা প্রশ্ন- আামি একজন সরকারী চাকুরিজীবী। জেনারেল লাইনের লোক। আমি পিতা-মাতার একমাত্র পুত্র সন্তান। পরিবার নিয়ে ঢাকায় থাকি। পিতা-মাতা বাড়ীতে থাকেন। আমি দাওয়াতে তাবলীগে সময় লাগিয়ে দ্বীনের উপর চলার চেষ্টা করি। বাড়ীতে দ্বীনদ্বারী পরিবেশ নেই। পিতা-মাতা অসুস্থ তাদের দেখা-শোনার কোনো লোক নেই বিধায় আমি বদলী হয়ে আমার থানাতে যেতে চাই যাতে বাড়ীতে থেকে অফিস করা ও পিতা-মাতাকে দেখা-শোনা করা যায়। আমার স্ত্রী এলাকায় যেতে চাইলেও আামার পিতা-মাতার সাথে সে থাকতে চায় না। কারণ বাড়ীর পরিবেশ খারাপ তাই। স্ত্রীর কথা হলো, এলাকায় গিয়ে শহরে কোথাও থেকে পিতা-মাতাকে দেখা -শোনা করতে হবে বাড়ীতে থাকা যাবে না। কথা হলো-আমি যদি পিতা-মাতার সাথে না থাকি তাহলে পিতা-মাতাকে সার্বক্ষণিক দেখা-শোনা করা ও জমি-জমা দেখাশোনা করা কষ্টকর ব্যপার। আমি এখন কী করব? দয়াকরে জানালে উপকৃত হবো।

Leave a Reply

%d bloggers like this: